১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রচ্ছদ লাইফস্টাইল পেটে ভর দিয়ে শোয়ার যত অপকারিতা
২১, অক্টোবর, ২০১৯, ৪:৪৩ অপরাহ্ণ -

লাইফস্টাইল:

শোয়া কিংবা বসার ধরনে বিশ্রাম ও ঘুমের ওপর প্রভাব ফেলে। পাশাপাশি ঘাড় ও মেরুদ-ের বিভিন্ন সমস্যার অন্যতম কারণও এই বসা কিংবা শোয়ার ধরন। এদের মধ্যে একটি হল পেটের ভরে শোয়া, যা প্রায় সবাই করে থাকেন। এতে চাপ পড়ে অ্ন্েত্র, মেরুদ-ে এবং শ্বাসপ্রশ্বাসে। স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে এই বিষয়ের ওপর প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানানো হল বিস্তারিত। বই পড়া, মোবাইল-ল্যাপটপ চালানো ইত্যাদি করার সময় যারা পেটের ভরে শুয়ে থাকেন তাদের সতর্ক হওয়া উচিত। কারণ এতে ক্ষতির শিকার হচ্ছে মেরুদ- এবং অন্ত্র। এভাবে শোয়ার কারণে মেরুদ-ের স্বাভাবিক বাঁক পরিবর্তীত হয়, যার কারণে ব্যথা হতে পারে ঘাড় ও পিঠে। পেটের ভরে শোওয়ার সময় ঘাড় প্রসারিত থাকে আর দুই কাঁধ গিয়ে কানের কাছাকাছি পৌছায়। শরীরের সিংহভাগ ভর পরে দুই হাতের ওপর। এই অবস্থায় বিভিন্ন হাড়ের জোড়ে অস্বাভাবিক চাপ ফেলে। আর এভাবে শোয়া যদি প্রতিদিনের অভ্যাস হয় তবে দীর্ঘমেয়াদে ক্ষতি হতে পারে ভয়ানক।দীর্ঘসময় বসে কম্পিউটার ব্যবহার করার দীর্ঘমেয়াদী ক্ষতিকর প্রভাবের চাইতেও এভাবে শোয়ার ক্ষতির পরিমাণ বেশি বলে দাবি করেন বিশেষজ্ঞরা। মেরুদ- আমাদের স্নায়ুতন্ত্রকে সুরক্ষিত রাখে আর এই স্নায়ুতন্ত্রই শরীরের সকল অঙ্গের স্বাভাবিক কার‌্যাবলী নিয়ন্ত্রণ করে। অর্থাৎ স্নায়ুতন্ত্রে কোনো সমস্যা দেখা দিলে পুরো শরীর অক্ষম হয়ে পড়তে পারে। আর পেটের ভরে শুয়ে থাকা ঠিক সেই ঝুঁকিটাই বাড়ায়। পিঠের নিচের অংশে অস্বাভাবিক চাপ ফেলে এভাবে শুয়ে থাকা। যা ‘সায়াটিকা’ রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ায়। পিঠের নিম্নাংশে সমস্যা থেকে কোষ্ঠকাঠিন্য ও মলত্যাগজনীত অন্যান্য সমস্যাও দেখা দিতে পারে। এছাড়াও পেটের ভরে শুয়ে থাকার সময় শ্বাসপ্রশ্বাসের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় পেশিগুলোর ওপর শরীরের ভার পড়ে। ফলে শ্বাসপ্রশ্বাস পূর্ণ হতেও বাধা সৃষ্টি হয়।
করণীয়
চেয়ার কিংবা কিংবা বিছানায় আরাম করে বসে মোবাইল ল্যাপটপ ইত্যাদি ব্যবহার করা উচিত। বসার সময় পিঠের উপর অবিরাম চাপ যাতে না পড়ে সেদিকে সতর্ক হতে হবে। আর দেখার জন্য মাথা না ঝুঁকিয়ে বরং ডিভাইসটি চোখের সমান্তরালে নিয়ে আসার অভ্যাস করতে হবে।