২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১২ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রচ্ছদ সারা বাংলা রাজধানীতে বিদেশী মুদ্রা প্রতারক চক্রের ৫ সদস্য গ্রেফতার
২৪, অক্টোবর, ২০১৯, ১২:৩৩ অপরাহ্ণ -

সেলিম মিয়াঃ

বিদেশী মুদ্রা প্রতারক চক্রের পাঁচ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে গুলশান থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা বিদেশী মুদ্রার প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে মানুষের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিত।

গুলশান থানা পুলিশ রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে প্রতারক চক্রের সদস্য মোঃ আবু সাঈদ (৩২), মোঃ মামুন হোসাইন (৩০), মোঃ হাবিবুর রহমান (৩৭), মোঃ মাসুম হোসেন (২৯) ও মোঃ মামুন শরীফকে (৩৪) গ্রেফতার করে।

গুলশান থানা পুলিশের পাঠানো এক প্রেস রিলিজে বলা হয়, মোঃ ইসমাইল হোসেন নামে এক ব্যক্তি গত ১৭অক্টোবর,২০১৯ বেলা ১১ টায় তার আলফা লজিস্টিকস লিঃ প্রতিষ্ঠানের দেড় লক্ষ টাকা প্রাইম ব্যাংক গুলশান শাখা হতে উত্তোলন করে অফিসে যাচ্ছিলেন। তিনি গুলশান-১ পৌঁছালে পথিমধ্যে একজন সিএনজি ড্রাইভার তাকে স্যার সম্বোধন করে ডাক দেয়। তিনি সিএনজি ড্রাইভারের ডাকে সাড়া দিলে চালক তাকে ওমানের কিছু নোট দেখায় এবং এগুলো কোথায় ভাঙ্গাতে পারবে জানতে চায়। তখন পাশেই দাঁড়ানো এক যুবক সিএনজি ড্রাইভারের নিকট থেকে নোটগুলো নিয়ে ভাল করে দেখে তার মোবাইল ফোনে হিসাব করে জানায় যে, নোট গুলোর অনেক দাম। ঐ যুবক সিএনজি ড্রাইভারের নিকট থেকে ১০ হাজার টাকায় একটা নোট ক্রয় করেন। এরপর আরো একজন লোক সিএনজি ড্রাইভারের নিকট এসে ১৪টি ওমানের নোট তার মোবাইল ফোনে হিসাব করে বলে যে, নোটগুলোর মূল্য বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ৩ লক্ষ টাকা হবে। পরবর্তী সময়ে ঐ ব্যক্তি ইসমাইল হোসেনকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে সিএনজি চালকের কাছে থাকা ১৪টি ওমানের নোট দিয়ে দেড় লক্ষ টাকা নিয়ে দ্রুত সিএনজিতে উঠে পালিয়ে যায়। তাদের আচরন সন্দেহ হলে ইসমাইল হোসেন উক্ত সিএনজির নম্বরটি মুখস্ত করে রাখে। পরে তিনি মানি এক্সচেঞ্জের দোকানে গিয়ে জানতে পারেন ১৪টি ওমানের মুদ্রার মূল্য মাত্র ১০০০ টাকা। এ বিষয়ে তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে গুলশান থানায় ২২ অক্টোবর’১৯ একটি মামলা রুজু হয়।

গুলশান থানা সূত্রে জানা যায়, মামলা রুজুর পরপর খিলগাঁও এলাকায় অভিযান চালিয়ে সিএনজি চালক আবু সাইদকে গ্রেফতার করে গুলশান থানা পুলিশ। গ্রেফতারের পর তার হেফাজত থেকে সিএনজিটি উদ্ধার করা হয়। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ২৩ অক্টোবর’১৯ রাতে লালবাগ ও কামরাঙ্গিরচর এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রতারণা চক্রের অন্যান্য সদস্য মোঃ মামুন হোসাইন, মোঃ হাবিবুর রহমান, মোঃ মাসুম হোসেন ও মোঃ মামুন শরীফকে গ্রেফতার করা হয়।

গুলশান থানা সূত্রে আরো জানা যায়, গ্রেফতারকৃতরা পেশাদার প্রতারক চক্রের সদস্য। তারা ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় সিএনজিসহ অবস্থান নিয়ে টাকা বহনকারী সহজ সরল ব্যক্তিকে টার্গেট করে কৌশলে তাদের নিকট থেকে প্রতারণার মাধ্যমে ওমানের নোট দিয়ে টাকা হাতিয়ে নিত। ডিএমপি নিউজ