১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রচ্ছদ শেরপুর এবার চন্দ্রকোনার ভিক্ষুকদের ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা বানানোর কাজ শুরু করলেন ইউএনও
২৬, অক্টোবর, ২০১৯, ১১:১২ অপরাহ্ণ -

শেরপুর প্রতিনিধি:

এবার শেরপুরের নকলা উপজেলার ৯নং চন্দ্রকোনা ইউনিয়নের ভিক্ষুকদের ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা বানানোর কাজ শুরু করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদুর রহমান।

২৬ অক্টোবর শনিবার এ কাজ শুরু করা হয়। এ উপলক্ষে চন্দ্রকোণা ইউনিয়নে নিষিদ্ধ পলিথিন ব্যবহারের পরিবর্তে কাগজের ঠোংগা তৈরী করতে ভিক্ষুকদের প্রশিক্ষন দেওয়া হয়।

পরে ইউনিয়নের অন্তত ৬ জন ভিক্ষুককে প্রাথমিক ভাবে ঠোংগা বানানোর উপকরণ হিসেবে ২২ কেজি করে কাগজ ও প্রয়োজনীয় আঠা তৈরীর উপকরণ বিনামূল্যে তাদের হাতে তুলে দেন ইউএনও জাহিদুর রহমান।

এসময় চন্দ্রকোনা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাজু সাঈদ সিদ্দিকী, নকলা অসহায় সহায়তা সংস্থার সভাপতি শামীম আহমেদসহ, ইউপি সচিব, সকল ইউপি সদস্য, গ্রাম পুলিশ, বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত বেশ কিছু নারী-পুরুষ ভিক্ষুক, বিভিন্ন পেশা শ্রেণীর স্থানীয় লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

এ ইউনিয়নের ভিক্ষুকদের পরিবেশ বান্ধব কাগজের ঠোংগা বানিয়ে স্বাবলম্বী হতে উৎসাহিত করতে ঠোংগা বানিয়ে উদ্যোক্তা হিসেবে সফল উপজেলার নকলা ইউনিয়নের মকবুল ও তারা বানুকে উদাহরণ হিসেবে উপস্থাপন করেন ইউএনও জাহিদুর রহমান।

ইউএনও জাহিদুর রহমানের বক্তব্য ও বাস্তব উদাহরণ পেয়ে উপকরণ প্রাপ্ত ৬ জন ভিক্ষুক ভিক্ষা না করে কাগজের ঠোংগা বানিয়ে এবং তা বিক্রির মাধ্যমে সাবলম্বী হওয়ার সংকল্প করেন। তারা আর ভিক্ষা করবেন না বলে উপস্থিতিদের জানান।

এলাকাবাসীরা জানান, এই ৬জন কাগজের ঠোংগা বানিয়ে সফল হলে, আগামীতে চন্দ্রকোনা ইউনিয়নের সকল ভিক্ষুকরা পরিবেশ বান্ধব এই কাগজের ঠোংগা বানাতে ঝুঁকবেন। তারা জানান, ভিক্ষুকদের ভিক্ষা ভিত্তিতে অনাগ্রহী করতে প্রয়োজনীয় পরামর্শসহ সার্বিক সহযোগিতা করবেন।