১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রচ্ছদ গণমাধ্যম বেনাপোলে “জয়যাত্রা” টিভির প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত
১, নভেম্বর, ২০১৯, ৬:১৮ অপরাহ্ণ -

আসাদুজ্জামান রিপন (বেনাপোল -যশোর) :

যশোরের বেনাপোলে ““জয়যাত্রা” টিভির প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে।

শুক্রবার (১ নভেম্বর) সকাল ১০ টার সময় সীমান্ত প্রেসক্লাব, বেনাপোলের নিজস্ব অফিসে উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্য দিয়ে কেক কেটে ও দোয়া কামনার মাধ্যমে এ টিভির প্রথম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত
হয়।

এসময় সীমান্ত প্রেসক্লাব, বেনাপোলের সভাপতি শাহিদুল ইসলাম শাহিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আয়ুব হোসেন পক্ষীর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, শার্শা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মেহেদি হাসান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান,
বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আজিম উদ্দিন গাজী, বন্দর প্রেসক্লাব, বেনাপোলের সভাপতি শেখ কাজিম উদ্দিন, সহ-সভাপতি আবুল বাশার, সাঃ সম্পাদক আজিজুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক আনিছুর রহমান।

এসময় “জয়যাত্রা” টিভির সার্বিক উন্নয়ন ও উন্নতি কামনা করে প্রধান অতিথি বলেন, বর্তমান সরকার, টিভি চ্যানেল, প্রিন্টমিডিয়া ও অনলাইন মিডিয়াকে সঠিক তথ্যচিত্র তুলে ধরার এবং সংবাদকর্মীদেরকে তাদের মত প্রকাশের স্বাধীনতা দিয়েছেন। সেই লক্ষ্যে তৃণমূলের যেকোনো সঠিক সংবাদ মানুষের কাছে প্রতিনিয়ত পৌঁছে দিতে “জয়যাত্রা” টিভি অগ্রনী ভূমিকা রাখবে বলে আমি মনে করি।
তিনি বলেন, সাংবাদিকরা হলো সমাজের দর্পন। তারা তাদের শক্ত লিখনীর মাধ্যমে সমাজ থেকে যত অসঙ্গতি আসে তা দূর করার চেষ্টা করে। সাংবাদিকরা আছে বলেই স্বচ্ছ জবাবদিহিতা আছে। সাংবাদিক ভাইদের লেখনীর জন্যই আজ সমাজের অনেক অপরাধ প্রবনতা কমে আসছে। সর্বপরী সাংবাদিক ভাইরা নিরপেক্ষতার সাথে কাজ করবেন এই আশা ব্যক্ত করে, “জয়যাত্রা” টিভির সাথে জড়িত সবার সুস্থতা ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন। পাশাপাশি “জয়যাত্রা” টিভির সফলতা কামনা করেন।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, সীমান্ত প্রেসক্লাব, বেনাপোলের বাচ্চু হাওলাদার, জাহাঙ্গীর আলম, রাসেল হোসেন, সেন্টু, বন্দর প্রেসক্লাব, দপ্তর সম্পাদক এসএম স্বপন, সহ-প্রচার সম্পাদক মাসুদুর রহমান, কামাল হোসেন, সোহাগ হোসেন, সীমান্ত প্রেসক্লাব, বেনাপোলের সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপন, নয়ন, মিলন, সরদার ইমরান, সবুজ, মুক্তার হোসেন সহ বেনাপোলের স্থানীয় সাংবাদিক বৃন্দ।