২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১২ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রচ্ছদ সারা বাংলা ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে লবন-পেয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য স্থিতিশীল রাখতে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা।।
২০, নভেম্বর, ২০১৯, ৭:২৬ অপরাহ্ণ -

মারুফ হোসেন কমলঃ

ময়মনসিংহ নগরীর কেওয়াটখালী বাজারসহ উল্লেখযোগ্য বাজারসমূহে অদ্য ২০শে নভেম্বর বুধবার বিকালে বাজার পরিদর্শনে যান ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাজিব-উল-আহসান । বুধবার বিকালে তিনি সরাসরি এসকল বাজারের দোকানগুলোতে লবন ও পেঁয়াজের দামসহ বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের মুল্য, দোকানের ট্রেড লাইসেন্স ও মেয়াদোত্তীর্ণ জিনিসপত্রের মনিটরিং করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে এই ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করার সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন- ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের স্যানিটারী ইন্সপেক্টর দীপক মজুমদার,ইকবাল অাহমেদ,পেশকার আবুল হাসিম সহ সিটি কর্পোরেশনের সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন শাখার কর্মকর্তাগণ।

এসময় তিনি সেখানে কয়েকটি দোকানে পেঁয়াজ কেনাবেচার চালান,দোকানের লাইসেন্স, জিনিস পত্রের মেয়াদ,বাজার মুল্যের চার্ট দেখেন এবং ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলেন।

ম্যাজিস্ট্রেটের তদারকির বিষয়টি বাজারে ছড়িয়ে পড়লে দ্রুত খুচরা বিক্রেতারা লবন ও পেঁয়াজসহ বিভিন্ন পন্য ন্যায্য মুল্যে বিক্রি শুরু করেন। দোকানগুলোতে দ্রুতই মূল্য তালিকা লিখে টাঙিয়ে দেওয়ার পরামর্শ দেন ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকারী নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ।

দোকানদারেরা জানান, পেঁয়াজ ও লবন নির্ধারিত মুল্যে খুচরা ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করা হচ্ছে। এরপর ম্যাজিষ্ট্রেট বাজারে আসা সাধারণ ক্রেতাদের সঙ্গেও কথা বলেন।

বাজারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে সহনীয় মুল্যে সাধারন মানুষকে লবন-পেয়াজ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রাদি ক্রয়ে সহযোগিতায় এগিয়ে আসায় ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ইকরামুল হক টিটু ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন কেওয়াটখালীবাসী সহ সংশ্লিষ্ট বাজারের কেনাকাটা করতে অাসা ভোক্তাগণ।তথ্য প্রতিদিন