১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রচ্ছদ বিনোদন ইত্যাদিতে শামসুজ্জামান ও মাসুদ আলী
২৩, নভেম্বর, ২০১৯, ৫:২০ অপরাহ্ণ -

বিনোদন তথ্যপ্রতিদিন
দীর্ঘদিন পর আবারো টিভি পর্দায় ফিরছেন খ্যাতিমান অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামান ও মাসুদ আলী খান।
আর এই দুই গুণী অভিনেতাকে একসঙ্গে ক্যামেরার সামনে নিয়ে আসছেন নন্দিত নির্মাতা, উপস্থাপক হানিফ সংকেত। তিনি জানান, ২৯ নভেম্বর প্রচারিতব্য ‘ইত্যাদি’র নতুন পর্বে দেখা যাবে এই দুজনকে।
গত ৪ নভেম্বর ঢাকাস্থ ফাগুন অডিও ভিশনের নিজস্ব শুটিং স্পটে তাদের নিয়ে একটি নাটিকার দৃশ্যধারণ হয়।
টানা চার মাসেরও বেশি সময় হাসপাতালে জীবন-মৃত্যু
র সন্ধিক্ষণে ছিলেন খ্যাতিমান অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামান। তখন নিয়মিতই তার খোঁজখবর রাখতেন হানিফ সংকেত।
এ টি এম শামসুজ্জামান বলেন, ‘কথায় আছে, রাখে আল্লা মারে কে। আমার যখন শারীরিক অবস্থা চরম খারাপ, তখন অসংখ্য মানুষ আমার জন্য হাত তুলে দোয়া করলেন। তাদের দোয়ায় আমি সুস্থ হয়ে সবার সামনে ফিরে এসেছি। আমি যখন অসুস্থ ছিলাম তখন বারবার মনে হচ্ছিল আমি কি আর ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে পারব? আবার কি অভিনয় করতে পারব? এই সময় হানিফ সংকেত আমার কাছে এলেন। সাহস দিয়ে বললেন, আপনাকে আমরা নিয়ে যাব, আপনার একটুও হাঁটতে হবে না। তিনি তার কথা রাখলেন। শুধু নিয়ে যাওয়াই নয় চেয়ারে বসিয়ে কয়েকজনকে দিয়ে দোতালায় উঠালেন এবং ক্যামেরার সামনে আমাকে দাঁড় করালেন। অনেক সময় নিয়ে, যতœ নিয়ে আমাদের পর্বটি ধারণ করলেন এবং শুটিং শেষে আবার বাসায় পৌঁছে দিলেন। তার আপ্যায়ন, শিল্পীর প্রতি সম্মান সবসময় আমার ভালো লাগে। এবারো তার সেবা-যতœ আমাকে মুগ্ধ করেছে।
হানিফ সংকেত বলেন, বর্ষীয়ান এই দুই অভিনয়শিল্পী আমাদের জাতীয় সম্পদ। আজকাল মিডিয়াতে দেখা যায় একটু বয়স হলে তার জন্য আর কোনো চরিত্র থাকে না। কারণ অধিকাংশ নাটকেই কোনো বাবা-মা বা বয়স্ক চরিত্র দেখা যায় না। আর কেউ অসুস্থ হয়ে পড়লে তার খোঁজ-খবর নেয়া শুধু সেলফিতেই সীমাবদ্ধ থাকে। তবে আমার নাটক বলেন, ইত্যাদি বলেন সব জায়গায়ই এসব গুণী শিল্পীদের একটা বিশেষ স্থান থাকে। এই দুই গুণী অভিনেতা ইত্যাদির প্রায় নিয়মিত শিল্পী। দীর্ঘদিন দূরে থাকার পর পরিবারের একজন সদস্য ফিরে এলে যেমন আনন্দ হয় ইত্যাদিতে আবার তাদের পেয়ে আমিও তেমনি আনন্দিত।