২৫শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১২ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রচ্ছদ বিশেষ সংবাদ ময়মনসিংহে ডিবি’র অভিযানে চোরাই মোবাইল ল্যাপটপ ও মাদকসহ গ্রেফতার ৩
১২, অক্টোবর, ২০১৯, ৮:২৮ অপরাহ্ণ -

তথ্যপ্রতিদি. কমঃ

ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অভিযানে বিভাগীয় নগরীতে চুরি হওয়া মোবাইল, ল্যাপটপ, পাসপোর্টসহ নগদ অর্থ চুরি সিন্ডিকেটের তিন সদস্যসহ আরো তিন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। তাদের কাছ থেকে চুরি হওয়া একটি মোবাইল সেট ও ল্যাপটপ উদ্ধার করে পুলিশ। চুরির মালামাল উদ্ধার হওয়ায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত চোরেরা হলো মিজবাহুল হক, শাহিন মিয়া ও রাজিব মিয়া। এছাড়া মাদক ব্যবসায়ীরা হলো আলাল মল্লিক, ফরহাদ মিয়া ও কবির মিয়াকে গ্রেফতার করে।
ডিবির ওসি শাহ কামাল আকন্দ জানান, শহরের চোকাইতলা এলাকাার বাসিন্দা দোবাই প্রবাসী আবুল খায়েরের বাসায় গত ৫ সেপ্টেম্বর রাতে দুঃসাহসিক চুরির ঘটনা ঘটে। অজ্ঞাত চোরেরা গভীর তার বসত ঘর থেকে ঐ প্রবাসীর ২টি মোবাইল সেট, একটি ল্যাপটপ, ক্রেডিট কার্ড, পাসপোর্ট, নগদ ৭ হাজার টাকা ও এক হাজার দিরহাম চুরি করে নিয়ে যায়। এ চুরির ঘটনায় প্রবাসী আবুল খায়ের ৬ সেপ্টেম্বর কোতোয়ালী মডেল মামলা করেন। মামলাটি কোতোয়ালী পুলিশ কিচুদিন তদন্ত করলেও চুরির রহস্য উদঘাাটন এমনকি চোরচক্রের কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। অবশেষে মামলাপি পুলিশ সুপারের নির্দেশে ডিবি পুলিশকে তদন্তের দায়ভার দেন। ডিবির ওসি শাহ কামাল আকন্দের পরিকল্পনা ও পরামর্শে ডিবির এলআইসি বিভাগের এসআই পরিমল চন্দ্র সরকার তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে নেত্রকোণার বারহাট্টার মঞ্জুরুল হকের ছেলে মিজবাহুল হককে গ্রেফতার করে। এ সময় পুলিশ তার কাছ থেকে চুরি হওয়া মোবাইল সেই উদ্ধার করে। একই কৌশলে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে ডিবি পুলিশ ময়মনসিংহ সদরের সুহিলা মধ্যপাড়ার আরজব আলীর ছেলে শাহিন মিয়া ও টান কাতলাসেনের ফিরোজ আলীর ছেলে রাজিব মিয়াকে গ্রেফতার করে। এর মধ্যে শাহিন মিয়ার কাছ থেকে চুরি হওয়া ল্যাপটপ উদ্ধার করে পুলিশ। ডিবির এলআইসি বিভাগের এসআই পরিমল চন্দ সরকার বলেন, শুক্রবার রাতে তাদেরকে বিভিন্ন স্থান থেকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায় তারা চুরির সাথে জড়িত নয়। তারা এ সব মোবাইল ও ল্যাপটপ কমমুল্যে কিনেছেন। এর আগেও তারা বিভিন্ন চোরাই জিনিষপত্র বিভিন্ন সময়ে অতি কমমুল্যে কিনে পরে আবারো বিক্রি করে ফায়দা লুটেন। এলাকাবাসির মতে, গ্রেফতারকৃতরা দীর্ঘদিন ধরে চোরাই জিনিষপত্র কেনাবেচার কাজ করে আসছে।
এছাড়াও ডিবি পুলিশের এসআই শামীম আল মামুন সংগীয় অফিসার ফোর্সসহ শুক্রবার সন্ধ্যায় কালীবাড়ী মোড় এস.কে হাসপাতালের সামনে থেকে তিন শত পিস ইয়াবা ট্যাবলেট মাদক ব্যবসায়ী আলাল মল্লিককে গ্রেফতার করে। তার বাড়ি মাসকান্দা। সে ঐ এলাকার মৃত ইউনুছ মল্লিকের ছেলে। এছাড়া এসআই কামরুল হাসান সংগীয় অফিসার ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের শহীদ ডাঃ মিলন হোস্টেলের সামনে থেকে ২৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট সহ মাদক ব্যবসায়ী ফরহাদ মিয়া ও কবির মিয়াকে গ্রেফতার করে। তাদের বিরুদ্ধে পৃথক মামলা হয়েছে। শনিবার আদালতে পাঠানো হয়।

 

তথ্যপ্রতিদি. কম